অনলাইনে রিভিউ ক্লাস নিয়ে জবি শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

অনুপম মল্লিক,জবি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:০৯ PM, ০৯ জুন ২০২১

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) সশরীরে পরীক্ষা নেয়ার আগে অনলাইনে রিভিউ ক্লাস নেয়া হবে।তবে অনলাইনে রিভিউ ক্লাসের সিদ্ধান্তে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।তারা সশরীরে রিভিউ ক্লাস করতে চায়।

জানা যায়,গত ৮ জুন উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক এর সভাপতিত্বে এক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।সভা সূত্রে জানা যায় ১৩ জুন পরীক্ষার তারিখের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানানো হবে,আর পরীক্ষা নেয়ার আগে ২ সপ্তাহ অনলাইনে রিভিউ ক্লাস হবে।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, অনলাইন ক্লাসের ঘাটতি পোষাতে যে রিভিউ ক্লাস,সেই রিভিউ ক্লাসই অনলাইনে হলে শিক্ষার্থীদের ঘাটতি পূরণ হবে না। এছাড়াও করোনাকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের সিংহভাগই গ্রামে থাকায়, ইন্টারনেট সংযোগ ও ডিভাইসের সমস্যার কারণে অনেকে অনলাইন ক্লাসগুলোতে নিয়মিত হতে পারেনি।

এদিকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের ফেসবুক গ্রুপে অনলাইনে রিভিউ ক্লাস সংক্রান্ত এক জরিপে দেখা যায় ৯৫১ ভোটের মধ্যে ৯৩% শিক্ষার্থী সশরীরে রিভিউ ক্লাস করতে চায়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত বিভিন্ন গ্রুপের জরিপে দেখা যায়, ১৩৬৫ জন শিক্ষার্থী সশরীরে রিভিউ ক্লাসের পক্ষে এবং ২৬ জন অনলাইন রিভিউ ক্লাসের পক্ষে।

অপর একটি ফেসবুক গ্রুপ ‘করোনা মোকাবেলায় জবিয়ানের পাশে জবিয়ান’ -এ চালানো জরিপেও একই অবস্থা দেখা গেছে। সেখানে সশরীরে রিভিউ ক্লাসের পক্ষে মতামত দিয়েছেন ৬০৮ জন। অনলাইনে রিভিউ ক্লাসের ১১ জন মতামত দিয়েছেন।

এছাড়াও বিক্ষিপ্ত আরও কয়েকটি জরিপেও উল্লেখিত জরিপগুলোর ফলাফলই দৃশ্যমান।

শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলে,যে অনলাইন ক্লাসে মোট শিক্ষার্থীর অর্ধেকেরও কম উপস্থিত থাকতো, সে অনলাইনেই রিভিউ ক্লাস।তাহলে রিভিউ ক্লাস না নিয়ে সরাসরি পরীক্ষা নেয়াই উচিত।
তাছাড়া,অনলাইন ক্লাসে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা থাকার কারনেই তো রিভিউ ক্লাস নেয়া।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী তৌহিদ আহমেদ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বলেন,রিভিউ ক্লাস অনলাইনে হলে এটা ফলপ্রসূ হবে না।অনলাইনে ক্লাস ই আমি বুঝি নি ভালোভাবে সেখানে রিভিউ ক্লাস কিভাবে বুঝবো।রিভিউ ক্লাস তো অবশ্যই অনেক তাড়াহুড়ো করে পড়ানো হবে।যখন অনলাইনে ক্লাস শুরু হয়েছিলো তখন ক্লাস এ কিছুই বুঝতাম না।ভাবলাম হয়তো আমার মনোযোগ এর ঘাটতি কিন্ত পরে কয়েকটা ক্লাস খুব মনোযোগ দিয়ে করেছি কিন্ত যা পড়ানো হয় তা একবারে পুরোপুরি বুঝতে পারি নি।খাতায় যা নোট করতে পেরেছি তাও এক্সামে আসা প্রশ্ন লিখার জন্য যথেষ্ট হবে না মে বি।তাছাড়া নেট সমস্যা তো ছিলোই।আগে যা-ই পড়ানো হয়েছে যেমনই বুঝেছি এখন রিভিউ ক্লাস গুলো সশরীরে নিলে খুবই ভালো হতো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থী মাহমুদুল বলেন, ‘রিভিউ ক্লাসগুলা অফলাইনে হলে পরীক্ষায় স্টুডেন্টদের আত্মবিশ্বাস বাড়বে। পরীক্ষা যদি সশরীরে হয় তাহলে রিভিউ ক্লাসও সশরীরে নেয়া দরকার।

গত বছরের ২ জুলাই সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ট্রেজারার, অনুষদের ডীন, ইনস্টিটিউটের পরিচালক, রেজিস্ট্রার, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, প্রক্টর, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ও লাইব্রেরিয়ানের সমন্বয়ে এক অনলাইন মিটিংয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ক্লাস নেয়ার বিষয়ে নয়টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
এর মধ্যে একটি ছিল, ক্যাম্পাসে ক্লাস শুরু হলে রিফ্রেশমেন্ট ক্লাসের জন্য তিন সপ্তাহ সময় দেয়া হবে। এ সময় ব্যবহারিক ক্লাসও নেয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :