ইবি লেকের বেহাল দশা; ভ্রুক্ষেপ নেই কর্তৃপক্ষের

ইমরান মাহমুদ, ইবি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১০:৩১ PM, ০৬ অক্টোবর ২০২১

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে অন্যতম ইবি লেক। বিশ্ববিদ্যালয়ের পশ্চিম সীমান্ত ঘেষে অবস্থিত লেকটি শিক্ষার্থীদের অবসর সময় কাটানোর অন্যতম স্থান। কিন্তু বর্তমানে প্রশাসনের অবহেলা ও স্থানীয়দের দৌরাত্ম্যে লেকটি আজ হারাতে বসেছে তার সৌন্দর্য।

সরেজমিনে দেখা যায়,লেকটি সম্পূর্ণ কচুরিপানায় ভরে গেছে। নিজস্ব স্বকীয়তা হারিয়ে পরিণত হয়েছে কচুরিপানা পূর্ণ নর্দমায়। লেকের মাছ ও অন্যান্য জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে। লেকের কাঠের সেতুটির অবস্থা জরাজীর্ণ । সীমানাপ্রাচীরের দুটি দেয়াল স্থানীয়রা যাতায়াতের জন্য ভেঙে ফেলেছে। ফলে ভ্রমণপ্রেমী ও শিক্ষার্থীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

খোজ নিয়ে জানা যায়, লেকটিতে স্থানীয়দের দৌরাত্ম্যের কমতি নেই। লেকের পানি দিয়ে জমি সেচ, পানিতে পাট জাগ ও লেকের পাড়ে পাট শুকান স্থানীয়রা। সন্ধ্যা হলেই মাদক সেবীদের আখড়ায় পরিণত হয় লেকটি। লেকের পশ্চিম পাশের রাস্তাটি আগাছা জঙ্গলে ভরে গেছে ভয়ে রাস্তা দিয়ে হাটতে পারেন না দর্শনার্থীরা।

এছাড়াও লেকের দক্ষিণ সিমান্তে প্লাস্টিক পলিথিন ও ময়লা আর্বজনার ভাগাড় গরে তোলা হয়েছে যা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ নষ্টের পাশাপাশি হানি করছে লেকের সৌন্দর্য।সব কিছু পরিষ্কার করে খুব শীঘ্রই লেকটি সংস্কার করা না হলে এর রুগ্ন চেহারা অচিরেই ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করবে।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী আব্দুল আলিম বলেন,’দীর্ঘ দিন ইবি লেকের কোন সংস্কার নেই। কচুরিপানা আর ঝোপঝাড়ে ভরে গেছে পুরো লেক প্রাঙ্গণ। সাপ পোকা মাকড়ের ভয়ে লেকে আসতে ভয় পান শিক্ষার্থীরা। লেকটি সংস্কার করা অত্যন্ত প্রয়োজন। আমি প্রশাসনের কাছে এটি সংস্কারের জোর দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের এস্টেট শাখার প্রধান টিপু সুলতান বলেন, ’লেকের সংস্কার কাজের জন্য ভিসি এবং ট্রেজারারের কাছে নোট পাঠিয়েছি। নোট এখনো সিগনেচার হয়ে আসেনি।নোট আসলে বলতে পারবো কবে নাগাদ লেকের সংস্কার কাজ শুরু করা যাবে’।

আপনার মতামত লিখুন :