এই গুলি করে দিবো কিন্তু!

উমর ফারুক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:৩৯ PM, ০৪ মে ২০২১

আজ মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের বাসভবনে সিন্ডিকেট সভা আহ্বান করা হয়। উপাচার্য সিন্ডিকেট সভায় পছন্দের প্রার্থীদের অ্যাডহকে চাকরি দিতে জোর চেষ্টা চালাচ্ছেন এমন অভিযোগে সভা বন্ধের দাবিতে বাসভবনের সামনে অবস্থানের ঘোষণা দেন প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের দুর্নীতি বিরোধী শিক্ষকরা। সেখানে সকাল থেকে চাকরিপ্রত্যাশী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও বহিরাগতরা অবস্থান নেন এবং ভিসির বাস ভবন ঘেরাও করে রাখে চাকরী প্রত্যাশী ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান কমিটির নেতাকর্মীরা। সে মুহূর্তে সিন্ডিকেট সভায় ‘অবৈধভাবে নিয়োগ দেয়া হবে’ এমন অভিযোগে দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকরা উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চাইলে শিক্ষকদের সাথে আগে থেকে অবস্থান নেয়া চাকরী প্রত্যাশী ছাত্রলীগের ধাক্কাধাক্কি ঘটে। একপর্যায়ে শিক্ষকরা জোরপূর্বক প্রবেশের চেষ্টা করলে ছাত্রলীগের নেতারা শিক্ষকদের লাঞ্চিত করেন।
এই সময় শিক্ষকরা বাসভবনের সামনে অবস্থান রতদের আইডিকার্ড প্রদর্শনের দাবি জানায় তারা। ঠিক এই সময় এক চাকরী প্রত্যাশী উপস্থিত শিক্ষকদের গুলি করার হুমকি দেন। হুমকিদাতা চাকরীপ্রত্যাশী বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকা মেহেরচণ্ডীর বাসিন্দা আকাশ বলে জানা গেছে।
এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আব্দুস সালাম সিন্ডিকেট সভা স্থগিতের ঘোষণা দেন।
দু পক্ষের এমন পরিস্থিতিতেও বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরের নির্লিপ্ত ভূমিকায় দেখা যায়। এ বিষয় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান কোন কথা বলতে রাজি হন নি।
দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের মধ্যে অধ্যাপক সুলতান-উল-ইসলাম টিপু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বহিরাগতদের নিয়ে এসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করছে। এই বহিরাগতরা লাঠিসোটা নিয়ে এসেছে। উপাচার্য এদের নিয়ে এসেছেন। সকল অনিয়ম দুর্নীতি ও নিয়োগ-বাণিজ্য হালাল করতে তিনি উঠে পড়ে লেগেছেন। মেয়াদ শেষ হবার ঠিক দুইদিন আগে সিন্ডিকেট সভায় তিনি আরও অনিয়ম করার পাঁয়তারা করছেন।
তিনি আরও বলেন, উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বাসভবনে প্রবেশ করতে চাইলে শিক্ষকদের গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। তার মানে তাদের কাছে অস্ত্র আছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সন্ত্রাসীদের নিয়ে এসেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমে বহিরাগতরা হস্তক্ষেপ কেন করবে? বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী কর্মকর্তা-কর্মচারী থাকতে পারে। কিন্তু উপাচার্য বহিরাগত পেটোয়া বাহিনী নিয়ে এসেছেন।

এর আগে, গত ২মে (রোববার) সকাল সাড়ে ১০টায় উপাচার্য ভবনে ফাইনান্স কমিটির সভা ছিলো। তবে মেয়াদের শেষ সময়ে এসে আজকের সভায় আরও বড় ধরনের ‘অনিয়ম’ করবে এমন আশঙ্কায় মিটিং স্থগিতের দাবিতে ভিসির শুরুর আগেই সকাল সাড়ে ৮টায় ভবনের মূল ফটকে তালা লাগায় আন্দোলনকারীরা। ভিসি প্রফেসর এম আব্দুস সোবহানের বাসভবনে তালা দেয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি প্রশাসন ভবন ও সিনেট ভবনে তালা লাগিয়ে দেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান কমিটির নেতা-কর্মীরা।

 

আপনার মতামত লিখুন :