খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি ইবি জিয়া পরিষদের

ইবি প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:10 AM, 18 November 2021

বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং সুচিকিৎসার দাবি জানিয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)জিয়া পরিষদ। বুধবার (১৭ নভেম্বর) ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় জিয়া পরিষদের সভাপতি প্রফেসর ড. মোঃ তোজাম্মেল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মোঃ ইদ্রিস আলী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান।

বিবৃতিতে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় জিয়া পরিষদের শিক্ষকবৃন্দ বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছে। দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনের গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার অবদান অপরিসীম। দেশের জনমানুষের কল্যাণে আজীবন নিরলস কাজ করে যাওয়া এই মহান নেত্রী রাজনৈতিক প্রতিহিংসা ও ব্যক্তিগত শত্রুতার বশবর্তী হয়ে সুচিকিৎসা বঞ্চিত হওয়ায় জনমনে প্রবল ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। তারা আরও বলেন, কেন্দ্রীয় কারাগারের নির্জন ও পরিত্যক্ত কক্ষে দীর্ঘদিন অন্তরীণ থাকার কারণে বেগম জিয়া আর্থাইটিস, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুসফুস, চোখের সমস্যাসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন। এছাড়াও করোনা পরবর্তী নানান উপসর্গে সম্প্রতি তার শারিরিক অবস্থার মারাত্মক অবনতি ঘটেছে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা অদিদ্রুত অসুস্থ্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন এবং তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার সুপারিশ করেন। বেগম জিয়ার পরিবার তাকে বিদেশ নেওয়ার জন্য সরকারের কাছে বারংবার আবেদন করেছে কিন্তু তাতে সাড়া পায়নি। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় জিয়া পরিষদ আশা করেছে ক্ষমতাসীন সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গ রাজনৈতিক সংকীর্ণ মানসিকতা পরিহার করে বেগম জিয়াকে সুচিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দেবে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৪ মার্চ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দূর্নীতি মামলায় শর্তসাপেক্ষে মুক্তি পান বেগম খালেদা জিয়া। এরপর থেকেই তিনি বিভিন্ন শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন।

আপনার মতামত লিখুন :