চাকরী নিশ্চিত না হলে লাগাতার আন্দোলনে যাবে ‘অবৈধ’ নিয়োগপ্রাপ্তরা

উমর ফারুক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:১১ PM, ১৯ জুন ২০২১

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সাবেক ভিসি প্রফেসর এম আবদুস সোবহানের শেষ কার্যদিবসে দেয়া বিতর্কিত নিয়োগপ্রাপ্ত
চাকরীতে যোগদানের দাবিতে ফের প্রশাসন ভবন, সিনেট ভবন ও উপাচার্য বাসভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। চাকরী নিশ্চিত ও যোগদানের বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত না আসলে পুনরায় আন্দোলনে যাওয়ার হুশিয়ারি দিয়েছে। শনিবার (১৯ জুন) বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন আন্দোলনকারীদের একজন সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত আতিকুর রহমান সুমন।

তিনি বলেন, আমাদের নিয়োগ হয় স্থায়ী করা হোক অথবা বাতিল করা হোক, কোন একটি সিদ্ধান্ত আমরা চাই। আমরা জীবনের মায়া করি না।যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে রাজি আছি। তিনি আরো বলেন, উপাচার্য রুটিন দায়িত্বে থেকে সিন্ডিকেট সভা করতে পারলে আমাদের বিষয়ে সমাধান করতে পারবে না কেন?
এর আগে বেলা ১১টার দিকে ক্যাম্পাসে উতপ্ত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে ফাইন্যান্স কমিটির সভা স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

জানা গেছে, সকাল ৯ টার দিকে চাকরীতে যোগদান নিশ্চিতের দাবিতে দুটি প্রশাসন ভবন, সিনেট ভবন ও উপাচার্য বাসভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয় এ্যাডহকে নিয়োগপত্রপ্রাপ্তরা।

সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহার বাসভবনে দেখা করেন সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সোবহান কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত ১৪১ জনের প্রতিনিধি দল।

তারা রুটিন উপাচার্যের কাছে আজই যোগদান নিশ্চিতের দাবি জানান। যোগদান করতে না দেয়া হলে না হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন কার্যক্রম চলতে দেয়া হবে না বলেও জানান।

এবিষয়ে রুটিন উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনন্দ কুমার সাহা বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থবছর শেষ হতে যাচ্ছে। সেজন্য আমরা একটি ফাইন্যান্স কমিটির সভা ডেকেছিলাম। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আমরা সে সভা স্থগিত করেছি। ”

নিয়োগপ্রাপ্তদের বিষয়ে উপাচার্য বলেন, “আমরা নিয়োগপ্রাপ্তদের আশ্বস্ত করেছি। নিয়োগরাপ্তদের বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করায় এবিষয়ে আমাদের হাত-পা বাঁধা রয়েছে। আমরা শিক্ষামন্ত্রণালয়কে এবিষয়ে একটি বিহিত করতে অনুরোধ জানিয়েছি।”

এদিকে চাকরীতে যোগদান করতে দলীয় নেতাদের কাছে দারস্থ হতে দেখা গেছে সদ্য নিয়োগপ্রাপ্তদের। তারা ইতিমধ্যে শিক্ষা উপ মন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরি নওফেলের সাথে সাক্ষাত করে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাহফুজ আল আমিন জানান, এ নিয়োগ কোন ভাবেই দায়িত্ব প্রাপ্ত ভিসি আটকিয়ে রাখতে পারেন না। আমরা নিজেদের কর্মস্থলে যোগদান করতে চাই।

আপনার মতামত লিখুন :