ডিএসএলআর কেনা নিয়ে অভিমানে রাবি ছাত্রের আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:৪৭ PM, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

নিজ বাড়িতে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা করেছেন। নিহত শিক্ষার্থী ইমরুল কায়েসের বাড়ি যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর গ্রামে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ৩টার দিকে আত্মহত্যা করেন।

কায়েসের বাবা শহীদুল্লাহ ও মা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। তিন ভাই-বোনের মধ্যে দ্বিতীয় কায়েস।

আরিয়ান নামে কায়েসের এক সহপাঠী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে রুমের দরজা বন্ধ করে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে কায়েস। ঘটনার কিছু দিন আগে মায়ের কাছে মোটরসাইকেল কিনতে চেয়েছিল। মোটরসাইকেলও কিনে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ঘটনার আগে একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা কিনতে চায়। কিন্তু মধ্যরাতে ক্যামেরা কিনতে যাওয়া যাবে না বলে মা তাকে বোঝানোর চেষ্টা করে। এরপর সে রুমের দরজা বন্ধ করে গলায় ফাঁস দেয়। পরে রুমের দরজা ভেঙে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তার সহপাঠীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কায়েস মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিল। পুনর্বাসন কেন্দ্রেও ছিল কিছু দিন। এর মধ্যে বিভাগের ভর্তি কার্যক্রম শুরু হলে সহপাঠীদের সঙ্গে কথা বলে ভর্তিও হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইমরুল কয়েক দিন ধরে হতাশা আর আত্মহত্যা পোস্ট করছিলো।

ইমরুলের গ্রামের স্থানীয় লোকজন সূত্রে জানা যায়, মায়ের কাছে ডিএসএলআর ক্যামেরা চান ইমরুল কায়েস। ক্যামেরা কিনে দিতে দেরি হওয়ায় তিনি অভিমান করেন। গতরাতে খাবারও খাননি। রাত ২টার দিকে তার মা ঘরে ঢুকে দেখেন, ফ্যানের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে আছেন।

ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

আপনার মতামত লিখুন :