বাকৃবিতে সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা চালুসহ তিনদফা দাবি

বাকৃবি প্রতিনিধি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:৩৬ AM, ২৭ মে ২০২১

অবিলম্বে ক্যাম্পাসে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম চালুর রোডম্যাপ ঘোষণা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সশরীরে ক্লাস-পরীক্ষা চালু, দ্রুততম সময়ে সকল শিক্ষার্থীর ভ্যাকসিনেশন ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতকরণ করতে হবে। এই তিন দফা দাবিতে মানববন্ধন করে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীবৃন্দ। বুধবার (২৬ মে) সকাল ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জব্বারের মোড়ে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন বাকৃবি শাখার সহ সাধারণ সম্পাদক জুবায়ের ইবনে কামালের সঞ্চালনায় এবং সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট বাকৃবি শাখার সভাপতি গৌতম করের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সদস্য রিফা সাজিদা, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন বাকৃবি সংসদের সভাপতি ধ্রুব জ্যোতি সিংহ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট বাকৃবি শাখার সহ সভাপতি ইব্রাহিম খলিল।

এ সময় মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, “দীর্ঘদিন ধরে চলছে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবনের অনিশ্চয়তা। কবে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম চালু হবে সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা আমাদের সামনে নেই। দীর্ঘ ১৪ মাসের অধিক সময় স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। লকডাউনের দীর্ঘ সূত্রিতা বিবেচনায় দেরীতে হলেও অনলাইন ক্লাস শুরু করা হয়। শিক্ষার্থীদের অর্থনৈতিক সংকট, দূর্বল নেটওয়ার্ক সংযোগ, উপযুক্ত ডিভাইস ক্রয়ের সক্ষমতা না থাকলেও শিক্ষার্থীরা সেশন জটের আশংকায় অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ করেছে। অদক্ষতা, সৃজনশীলতার অভাব, মানসিক চাপ নানা কারনেই এই ডিজিটাল শিক্ষন পদ্ধতি খুব কার্যকর করা যায়নি। ইতোমধ্যে প্রথম দফায় গত বছরে লকডাউন শিথীল করে কলকারখানা চালু, গণপরিবহন চালু, সামাজিক অনুষ্ঠান এর আয়োজন, নির্বাচন সবকিছু আয়োজন করলেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু করে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করার ক্ষেত্রে সরকারের কোন সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা আমরা পাইনি।বরং নানা অজুহাতে শিক্ষা কার্যক্রম স্থগিত করে রাখা হয়েছে। এতে লাখো শিক্ষার্থীর শিক্ষাজীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে। শিক্ষার্থীরা হতাশাগ্রস্ত হয়ে নানারকম মানসিক ব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। এমতাবস্থায় আমরা মনে করি লাখো শিক্ষার্থীর জীবন নিয়ে এ টালবাহানা অবিলম্বে বন্ধ করা প্রয়োজন।

তারা আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতি কবে শেষ হবে আমরা জানিনা।তাই প্রয়োজন উদ্ভূত পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিকল্প শিক্ষাভাবনা।আমরা মনে করি হাটবাজার, দোকানপাট, গার্মেন্টস, কলকারখানা, অফিস -আদালত সবকিছু চলতে পারলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্ববিদ্যালয়েও শিক্ষা কার্যক্রম চালু করা সম্ভব।শিক্ষার্থীদের হল খোলা রেখে সীমিত পরিসরে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সশরীরে ক্লাস -পরীক্ষা চালু করা এখন সময়ের দাবি। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের হেলথ কেয়ারে করোনা আইসোলেশন ইউনিট,পর্যাপ্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করে এবং সকল শিক্ষার্থীর ভ্যাকসিনেশন নিশ্চিত করে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা সম্ভব। এজন্য প্রয়োজন প্রশাসনের উদ্যোগ ও সঠিক পরিকল্পনা বলে মনে করেন বক্তারা।

মানববন্ধন থেকে দ্রুত স্বাস্থ্য বিধি মেনে ক্যাম্পাস খুলে দেয়ার জোর দাবী জানানো হয়।

আপনার মতামত লিখুন :