মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা দিলো রাবি বন্ধুসভা

উমর ফারুক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৭:০০ PM, ২৭ মার্চ ২০২১

স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্ণ করলো বাংলাদেশ। স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে উদ্ভাসিত দেশ। একই সঙ্গে জাতির পিতা স্বাধীনতার স্থপতি শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপিত হচ্ছে। এ এক অবিস্মরণীয় মিলনমেলা। যুক্ত হয়েছে অন্যরকম মাহাত্ম্যতা।
স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে নানা আয়োজনে দিনটি উদযাপন করেছে দেশ।
তবে ভিন্ন এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করলো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রথম আলো বন্ধুসভা। গতকাল শুক্রবার নড়াইলের বীর মুক্তিযোদ্ধা মো.ইমারত খাঁনকে সম্মাননা উপহার গিয়ে দিনটিকে আরো রঙ্গিন করে তুলেছে সংগঠনটি।
উক্ত অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.সাদিকুল আরেফিন মাতিন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড.লুৎফর রহমান, অধ্যাপক আকতার বানু, সহকারী অধ্যাপক সাদিকুল ইসলাম সাগর এবং আরো উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলো বন্ধুসভার কেন্দ্রীয় পরিচালনা পর্ষদ এর সভাপতি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফারসি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড.মুমিত আল রশিদ, রাবি বন্ধুসভার সভাপতি তারিফ হাসান মেহেদী, সাধারণ সম্পাদক শাদমান সাকিব নিলয় সহ উপদেষ্টামন্ডলী ও বন্ধুসভার বন্ধুরা।

স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে অনলাইনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা বীর ইমারত খাঁন তার মুক্তিযুদ্ধের কাহিনী বর্ননা করেন। তরুণ প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাসের ব্যাখা করেছেন।
অনুষ্ঠানে তিনি বলেন,আমাদের বঙ্গবন্ধু যখন স্বাধীনতার ঘোষণা দেয়,আমি তখন বাড়ি থেকে পালিয়ে ভারতে ট্রেনিং করে গেছি। বাড়ীতে মা বাবা আত্মীয় স্বজন রেখে জীবন বাজী রেখে যুদ্ধে যোগ দিয়েছিলাম।নানা প্রতিবন্ধকতা পেড়িয়ে দেশটাকে শত্রু মুক্ত করেছি।
তাছাড়া মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে তরুণ প্রজন্মের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
অনুষ্ঠান শেষে রাবি বন্ধুসভার সমাজকল্যাণ সম্পাদক আবু সাহাদাৎ বাঁধন এর সরাসরি উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানের অতিথিবৃন্দ বীর মুক্তযোদ্ধা ইমারত খাঁনের হাতে সম্মাননা তুলে দেন।

আপনার মতামত লিখুন :