রাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা নিতে প্রশাসনকে শিক্ষক সমিতির অনুরোধ

উমর ফারুক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৪:০৪ PM, ২৬ মে ২০২১

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) নির্দেশনা মোতাবেক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়ে প্রশাসনের সাথে মতবিনিময় করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দরা।
আজ বুধবার (২৬মে) সকালে উপাচার্যের সভাকক্ষে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য প্রফেসর ড. আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. চৌধুরী মোহাম্মদ জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. মোস্তাফিজুর রহমান আল আরিফ, রেজিস্ট্রার প্রফেসর আব্দুস সালাম উপস্থিত ছিলেন।

রাবি শিক্ষক সমিতির পক্ষে নির্বাহী কমিটির সহ-সভাপতি প্রফেসর ড. মো. সাইয়েদুজ্জামান (মিলন), সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. আশরাফুল ইসলাম খান, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. রেজিনা লাজ, যুগ্ম সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক ড. সাজ্জাদ বকুল এবং সদস্যদের মধ্যে প্রফেসর ড. মো. রেজাউল করিম-২, প্রফেসর ড. মো. ইয়ামিন হোসেন, প্রফেসর ড. মো. রফিকুল ইসলাম (রয়েল), সহযোগী অধ্যাপক ড. এ কে এম মাহমুদুল হক (টুটুল) ও ড. আজিজুর রহমান (শামীম) উপস্থিত ছিলেন।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানিয়ে শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দরা বলেন, করোনা মহামারির জন্য দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় বিভিন্ন বর্ষের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে পারে নি। এতে বিশেষ করে অনার্স শেষ বর্ষ ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা চরম হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে। অনেকের চাকুরিজীবনে প্রবেশ বিলম্বিত হওয়ায় পারিবারিকভাবেও অনিশ্চয়তায় পড়েছে।
যদিও বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়টি জনস্বার্থের সঙ্গে সম্পর্কিত এবং এ ব্যাপারে সরকার তথা বিশেষজ্ঞদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত, তবু বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ব্যাপারে প্রশাসন যেন যথোপযুক্ত সিদ্ধান্ত নেয়।
আর বিশ্ববিদ্যালয় যদি খোলা নাও যায় তাহলে অন্তত পরীক্ষা অনুষ্ঠানের ব্যাপারে কী করা যায় সে বিষয়ে প্রশাসন যেন অতি দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয় সেই অনুরোধ জানানো হয়।
সমিতি মনে করে, সম্প্রতি ইউজিসি পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক মনোভাব দেখানোয় রাবি কর্তৃপক্ষ এ বিষয়ে এখন কার্যকর পদক্ষেপ নিতে পারে। এ বিষয়ে প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ নিলে শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে সর্বাত্মক সহায়তা করার আশ্বাস দেওয়া হয়।
জবাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য ও উপস্থিত প্রশাসনের অন্য শীর্ষ ব্যক্তিরাও তাঁদের ইতিবাচক মনোভাবের কথা জানান।
এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.আনন্দ কুমার সাহা বলেন, আজ শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে কী দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয় তা দেখে অতি দ্রুত ক্লাস-পরীক্ষার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল অনুষদের ডিন ও বিভাগীয় সভাপতিদের পরামর্শক্রমে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। শিক্ষার্থীদের কল্যাণের জন্য যৌক্তিক ও জাতীয় সিদ্ধান্তের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ সকল সিদ্ধান্তই প্রশাসনের পক্ষ থেকে গ্রহণের আশ্বাস দেন তিনি।

এদিকে, করোনা সংক্রমণের কারণে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ১২ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি ও শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলতে ভার্চ্যুয়ালি এক সংবাদ সম্মেলন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এ তথ্য জানান।
শিক্ষামন্ত্রী আরো জানান, বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে আবাসিক শিক্ষার্থী প্রায় ১লক্ষ ৩০ হাজার। সবাইকে করোনার টিকার প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ নিশ্চিত করা পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে করতে হবে তারপর বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হবে।

এর পূর্বে, গতকাল সোমবার (২৪মে) দীর্ঘ দিন ধরে বন্ধ থাকা বিশ্ববিদ্যালয় গুলো খুলে ক্লাস-পরীক্ষা নিতে দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন কর্মসূচী করেছে।

 

 

আপনার মতামত লিখুন :