সার্ক এগ্রিকালচার সেন্টারের সাথে খুবির বিজিই ডিসিপ্লিনের মতবিনিময়

মুহিব্বুল্লাহ, খুবি
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:১৮ PM, ২৮ মার্চ ২০২১

কৃষির সম্ভাবনা বিকাশ ও উদ্ভাবনের মাধ্যমে সার্ক অঞ্চলে খাদ্য নিরাপত্তাসহ অন্যান্য চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় যৌথ গবেষণা, অভিজ্ঞতা বিনিময় ও প্রযুক্তি হস্তান্তরের তাগিদ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এই লক্ষ্য অর্জনে ও বিদ্যমান সমস্যা নিরসনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে গবেষণা ও উদ্ভাবনা কার্যক্রম ত্বরান্বিত করা এবং উদ্ভাবিত প্রযুক্তি কাজে লাগানোর লক্ষ্যে যৌথ উদ্যোগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। আজ ২৭ মার্চ শনিবার দুপুরে ঢাকায় অবস্থিত সার্ক এগ্রিকালচার সেন্টারের ১২ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দলের খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং (বিজিই) ডিসিপ্লিনের সাথে এমওইউ স্বাক্ষরের লক্ষ্যে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিজিই ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. শেখ জুলফিকার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, জীববিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস এবং কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) এর নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. এস এম বখতিয়ার সম্মানিত অতিথি হিসেবে এবং সার্ক এগ্রিকালচার সেন্টারের পরিচালক ড. মোঃ বখতিয়ার হোসেন অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন।

খুবির বিজিই ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. খন্দকার মোয়াজ্জেম হোসেন এই যৌথ স্মারক স্বাক্ষরের ফোকাল পয়েন্ট কো-অর্ডিনেটর। তাঁর স্বাগত বক্তৃতার পর খুবির বিজিই ডিসিপ্লিনের শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম সম্পর্কে পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন ও বিবৃত করেন প্রফেসর ড. এস এম আব্দুল আউয়াল। সার্ক এগ্রিকালচার সেন্টারের কার্যক্রম সম্পর্কে অনুরূপ উপস্থাপন করেন সেন্টারের এসপিএস (ক্রপ) ড. শ্রীকান্ত আট্টালুরি। এসময় আরও শুভেচ্ছা বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহের কৃষি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ আব্দুর রহিম। পরে আগত অতিথিদের অনেকেই বিজিই ডিসিপ্লিনের উন্নতমানের ল্যাব ও গবেষণা কার্যক্রম সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে বিভিন্ন তথ্য জানতে চাইলে গবেষকগণ তা অবহিত করেন।
বিজিই ডিসিপ্লিনের শিক্ষক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের দি অফিস অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স এর পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ মুরছালীন বিল্লাহ’র পরিচালনায় মতবিনিময় শেষে জানানো হয় উভয়পক্ষ এমওইউ স্বাক্ষরে সম্মত হয়েছে এবং পরবর্তী আনুষ্ঠানিকতা শেষে যথাসম্ভব শীঘ্রই তা স্বাক্ষর করা হবে। পরে প্রতিনিধি দল বিজিই ডিসিপ্লিনের ৭টি প্রতিষ্ঠিত গবেষণা ল্যাবের কয়েকটি কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।
এসময় প্রতিনিধি দলের সদস্য এসপিএস (হর্টিকালচার) ড. নাসরিন সুলতানা, এসপিএস (লাইভেস্টক) আশীষ কুমার সামন্ত, এসপিএস (এনআরএম) পিন জ্যাং গাইল্টসেন, এসপিএস (ফিশারিজ) ড. গ্রীনসন জর্জ, সিনিয়র টেকনিক্যাল অফিসার এন্ড প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর (লাইভলিহুড প্রজেক্ট) এবং এসএকে ও ডিজিই ডিসিপ্লিন কলাব্রেটিভ প্রোগ্রামের কো-অর্ডিনেটর ড. ইউনুস আলী, সিনিয়র প্রোগ্রামার (এনআরএম) ফাতেমা নাসরিন, অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ অফিসার সাইফুর রহমান, সিনিয়র ফিন্যান্স অফিসার মোঃ আব্দুস সালাম, আইটি ম্যানেজার মোঃ মিজানুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :