সিলেট থেকে গ্রেফতার হলেন রাবি’র মাজহার (ভিডিও)

উমর ফারুক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১০:৩৫ AM, ২৯ মার্চ ২০২১

গত ২৫ মার্চ বাংলাদেশে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ। বিক্ষোভ চলাকালে পুলিশের সাথে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের নেতাদের মাঝে ধস্তাধস্তি ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনার মামলায় ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতা রাশেদ খান, ফারুক হাসানসহ ৫১ জনকে আসামি করা হয়েছে। একই ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ -রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম।
গতকাল রোববার রাত সাড়ে ১১টায় সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানার এসআই জালালের নেতৃত্বে পুলিশ জালালপুর বাজার থেকে গ্রেফতার করছে বলে জানা গেছে।
এর আগে, ২৫ মার্চ মতিঝিলে ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এরপর শনিবার প্রেসক্লাবের সামনে ধস্তাধস্তির ঘটনায় শাহবাগ থানার মামলা হয়। উভয় মামলায় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর ছাড়া সংগঠনটির শীর্ষ নেতারা আসামি।
ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতারা জানিয়েছেন, স্বাধীনতার সূবর্ণজয়তী উপলক্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেদ্র মোদী বাংলাদেশ আগমন ঠেকাতে রাজপথে নামে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা। সেখানে আন্দোলন থামানোর জন্য পুলিশ টিয়ারশেল ও তাদের ওপর লাঠিচার্জ করে। সেদিনই ছাত্র অধিকার পরিষদের অনেক নেতাকর্মীকে আটক করা হয় এবং রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক মাজহার ৩ দিন যাবৎ নিখোঁজ ছিলো বলেও জানান তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ রাবি শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ খান বলেন, বর্তমান সময়ে অন্যায়ের প্রতিবাদ করে আসছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।সেই প্রেক্ষিতে ঢাকায় মোদীর আগমনে ছাত্র অধিকার পরিষদ রাবির সাধারণ সম্পাদক মাজহার আন্দোলন যোগ দিয়েছিলো। সেই কারণেই পুলিশ তাদের নামে মামলা করেছে, তার প্রেক্ষিতে গতকাল রাতে শুনেছি তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমরা কেন্দ্রীয় নেতাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। সেভাবেই আইনি প্রক্রিয়া চালাবো। আমরা মাজহারের নিঃশর্ত মুক্তি চাই

আপনার মতামত লিখুন :